শিরোনাম:
ড্রামের লেভেল পরিবর্তন করে বেশি দামে অ্যাডমিক্সার বিক্রির অভিযোগ ওমিক্রন ঠেকাতে ডাবল মাস্ক পরার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের নাগরপুরে কম্বল বিতরণ করলেন রিসোর্স টিচার(ইংরেজি বিভাগ) ডা.এম.এ.মান্নান নাগরপুরে মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্রের উদ্যোগে শীত কম্বল বিতরণ টাংগাইলে দৈনিক সংগ্রাম উপজেলা সংবাদদাতাদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত সখীপুরে সাংবাদিক মামুনকে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সংবর্ধনা সখীপুরে উদ্বেগজনক ভাবে বেড়েই চলেছে মোটরসাইকেল দিয়ে ছিনতাই টাঙ্গাইলে দুই ট্রাকের সংঘ‌র্ষে আগুন, চালকসহ দগ্ধ ২ ৩৩ জনের মরদেহ সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে :: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪০ দেশকে মুক্ত করতে হবে : মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর
টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় ১২ মাসে ১১২ জনের প্রাণহানি 

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় ১২ মাসে ১১২ জনের প্রাণহানি 

প্রথম কণ্ঠ ডেস্ক : টাঙ্গাইল জেলার সড়কপথ গুলোতে কোনোভাবেই থামানো যাচ্ছে না মৃত্যুর মিছিল। প্রতিদিনই কোনো না কোনো স্থানে ঘটছে ছোট-বড় বিভিন্ন ধরনের দুর্ঘটনা। থানায় নথিভুক্ত মামলা থেকে জানা যায়, গত ১২ মাসে জেলায় ৬৩টি দুর্ঘটনায় ১১২ জন প্রাণ হারিয়েছে। তবে সব দুর্ঘটনায় যে থানায় মামলা হয়েছে, তা বলা যায় না। এসব দুর্ঘটনার পেছনে মহাসড়কে অনিয়ম বাড়াতে থাকাকেই দায়ী করেছেন লোকজন। মহাসড়কগুলোতে যত্রতত্র বাস দাঁড় করিয়ে যাত্রী ওঠানো-নামানো, উল্টোপথে যান চলাচল, নিষিদ্ধ থ্রি-হুইলার, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশাগুলোর অবাধ চলাচল, ফিটনেসবিহীন যান চলাচল, রাস্তা পারাপারে পথচারী-সেতু না থাকা, ট্রাকে ও বাসের ছাদে যাত্রী পরিবহন, পাল্লা দিয়ে গাড়ি চালানো, অতিমাত্রায় নিয়ন্ত্রণহীন মোটরবাইক চালানো, ঝুঁকিপূর্ণ বাঁকগুলোতে ওভারটেকিং, রাস্তার উপরে গাড়ি পার্ক করে রাখাসহ বিভিন্ন কারণে দুর্ঘটনা বেড়েই চলেছে।
বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) টাঙ্গাইল কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ জানুয়ারি মাস থেকে বছরের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন স্থানে ৬৩টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে ১’শ ১২ জনের প্রাণহানি হয় এবং আহত হন ৪০ জন।     আর ২০১৮-এর জানুয়ারি মাস থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত দুর্ঘটনা ঘটেছে ৪৪টি। এতে নিহত হয়েছেন ৪৪ জন এবং আহত ১২৭ জন। ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানি ঘটেছে প্রায় ৩ গুণ। তবে এই সংখ্যা শুধু থানায় মামলা করার সূত্রে লিপিবদ্ধ করা। প্রকৃত দুর্ঘটনার হিসাব বের করা সম্ভব হলে এই সংখ্যা আরো বাড়বে বলে জানিয়েছেন বিআরটিএ টাঙ্গাইল সার্কেলের মোটরযান সহকারী পরিদর্শক মো. আবু নাইম।
জেলায় দুর্ঘটনা যেভাবে বাড়ছে তা সামাল দিতে কর্তৃপক্ষ সেভাবে কুলিয়ে উঠতে পাচ্ছেন না। বিআরটিএ ও পুলিশ প্রশাসন জানিয়েছেন ট্রাফিক আইন না মেনে চলার কারণে এসব দুর্ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটছে।
 নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) সংগঠনের টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি মো. গোলাম কিবরিয়া বড়মণি বলেন, আমরা প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক করে বিভিন্ন কারণ চিহ্নিত করে সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। বর্তমানে সরকারের নিরাপদ সড়ক আইন ২০১৯ আইনটি কার্যকর করা হলে সড়ক দুর্ঘটনা অনেকটাই কমে যাবে বলে আশা করেন তিনি।
তবে বিআরটিএ টাঙ্গাইল কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আবু নাইম দাবি করেন, তারা সড়ক দুর্ঘটনা রোধে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন। সড়কে আইন রোধে আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে জরিমানা আদায় করা হচ্ছে। লাইসেন্স ও ফিটনেস সার্টিফিকেট প্রদানের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হচ্ছে না।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন




All rights reserved © Prothom Kantho
Design BY Code For Host, Inc