টাঙ্গাইলে স্কুল শিক্ষককে খুন করে গুম

টাঙ্গাইলে স্কুল শিক্ষককে খুন করে গুম

নিজস্ব প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী পৌরশহরে স্কুল শিক্ষক মো. সুলতানুজ্জামান হেলাল (৫০) কে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে তার অফিস কক্ষে খুন করে গুম করেছে দুর্বৃত্তরা।

সে পৌর শহরের নলহরা (নল্যা) বাজারের আরএনজি প্রি-ক্যাডেট স্কুলের পরিচালাক এবং উপজেলার বানিয়াজান ইউনিয়নের বাঐজান গ্রামের মৃত হাসান আলী মন্ডলের ছেলে। সে দুই সন্তানের জনক। পূর্ব শত্রুতার জেরে তাকে হত্যা করে গুম করা হয়েছে বলে ধারণা করছে তার পরিবার। এ ঘটনায় তার এলাকায় শোকের ছায়া নেয়ে এসেছে।

পুলিশ, নিহতের বড় ভাই আবু বকর সিদ্দিক ও তার ভাতিজরা জানান, বৃহস্পতিবার রাতে সুনতানুজ্জামান হেলাল ধনবাড়ী বাজার থেকে কাঁচা বাজার করে নল্যা বাজারের বিষ্ণুর সেলুনের দোকানের সামনে তার মোটর সাইকেলটি রেখে চা খেতে যায়। দীর্ঘ সময় চলে যাওয়ায় পরও সে ফিরে না আসলে ফোন দেন বিষ্ণু। ফোন বন্ধ পাওয়ায় বিষয়টি পরিবারের সদস্যদের জানান বিষ্ণু।

পরে তার পরিবারের লোকজন এবং বাজারের স্থানীয়রা তাকে খোঁজতে শুরু করেন। খোঁজার এক পর্যায়ে তার স্কুল অফিস কক্ষের মেঝেতে বিভিন্নস্থানে পড়ে থাকা রক্ত, মোবাইল ফোনটি দেখতে পায় পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়রা। তাকে খুন করে গুম করা হয়েছে বলেও ধারণা করছেন এলাকাবাসী।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, সুলতানুজ্জামান হেলাল নলহরা (নল্যা) বাজারের সহর প্রি-ক্যাটেড এন্ড হাই স্কুলে দীর্ঘদিন যাবত শিক্ষকতা করে আসছিলেন। শিক্ষকতা করা অবস্থায় সহর প্রি-ক্যাটেড এন্ড হাই স্কুলের পরিচালক সহর আলীর সাথে শিক্ষার মান নিয়ে ব্যাপক দন্দ্বের সৃষ্টি হয়। সুলতানুজ্জামান হেলাল ও সহর আলীর সাথ মাঝে মধ্যেই মনো মালিন্য হতো। সেই প্রেক্ষিতে সুলতানুজ্জামান হেলাল সহর প্রি-ক্যাটেড এন্ড হাই স্কুলের পাশেই আরএনজি প্রি-ক্যাডেট স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। কয়েক মাস আগে স্কুলের সাইন বোর্ড লগানো নিয়েও দুজনের মধ্য ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। তাকে দেখে নেয়া হবে বলে হুমকী প্রদান করে সহর আলী। এরই ধারাবাহিকতায় গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে তার অফিস কক্ষে খুন গুম করা হয় বলে হেলালের পরিবারের দাবী।

স্থানীয় সাবেক কাউন্সিলর খন্দকার খোরশেদ আলম খসরু ও ইউপি সদস্য আবুল কালম আজাদ জানান, হেলাল স্যার একজন খুবই ভালো মানুষ ছিলেন। কি কারণে তাকে খুন করে গুম করা হয়েছে তা ভেবে পাচ্ছি না। তবে কিছুদিন আগে স্কুলের সাইন বোর্ড সাটানো নিয়ে দুজনের মধ্য ঝগড়া হয় বলে শুনেছি।

এ ব্যাপারে সহর প্রি-ক্যাটেড এন্ড হাই স্কুলের পরিচালক সহর আলী জানান, আমি আজ সকালে সুলতানুজ্জামান হেলালকে খুন করে গুম করা হয়েছে বলে শুনেছি এবং ঘটনাস্থলে গিয়ে ছিলাম। তাকে খুন করে গুম করার ব্যাপারে আমি কিছু জানি না।

ধনবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) আশরাফুল ইসলাম ও এসআই মাজাহার এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, রাতেই খবর পেয়ে এবং আজ সকালেও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। তাকে হত্যা করে গুম করার ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে তার পরিবারের দাবী তাকে খুন করে গুম করা হয়েছে এবং থানায় অপমৃত্যুার মামলা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন




All rights reserved © Prothom Kantho
Design BY Code For Host, Inc