ভালুকায় তিন ছাত্রীকে ধর্ষনের দায়ে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার

ভালুকায় তিন ছাত্রীকে ধর্ষনের দায়ে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক,প্রথম কণ্ঠ : ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ডাকাতিয়া ইউনিয়নের বড়চালা নছিরন নহর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমানকে ঐ বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেনীর তিন ছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষনের অভিযোগে ২০ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সকালে আটক করেছে মডেল থানা পুলিশ।

স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, বড়চালা নছিরন নহর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান ১৫ই ফেব্রুয়ারি স্কুল চলাকালীন সময়ে ৫ম শ্রেণির তিন জন ছাত্রীকে মিথ্যা বলে স্কুল ভবনের ছাদে ডেকে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে ছাদের একটি ভবনে তাদের ভয় ভীতি দেখিয়ে পালাক্রমে যৌন হয়রানি করে। ঘটনাটি স্কুল ছুটির পর ছাত্রীদের অভিভাবকদের জানালে, তাৎক্ষণিক ভাবে তারা বিষয়টি স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে অবহিত করেন।

বড়চালা নছিরন নহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে গত ১৮ই ফেব্রুয়ারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার বরাবর একটি ধর্ষনের লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে। পরে শিক্ষা অফিসার, স্থানীয় ইউপি মেম্বার, অভিভাবক ও অন্যান্য সহকারী শিক্ষকরা একসাথে বসে প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতার প্রমান পায় । এ ঘটনায় গত ১৯ শে ফেব্রুয়ারি ভালুকা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন বিষয়টি তদন্ত করতে।

স্থানীয়দের অভিযোগ বড়চালা নছিরন নহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক হাবিবুর রহমান একই ইউনিয়নে দক্ষিণ ডাকাতিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও খাঁনপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকুরিতে অবস্থায় অনৈতিক কাজের জন্য বদলি হন। এ ব্যাপারে ছাত্রীর মা পারভিন আক্তার কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, আমার মেয়ে প্রায়ই স্কুলে যেত চাইত না। অন্য স্কুলে ভর্তি হওয়ার জন্য আমাকে বলত! বিষয়টি আমি বুঝতে পারতামনা। এই ঘটনাটি প্রকাশ্যে এলে এখন বুঝতে পারছি মেয়ে কি কারণে স্কুলে যেত চাইত না।

একই কথা আরেক ছাত্রীর মায়ের আমরা ঐ লম্পট শিক্ষক যিনি সন্তানতূল্য ছোট ছোট কোমলমতি ৫ম শ্রেনীর মেয়েদেরকে যৌনহয়রানি করতে বাধ্য করতে সেই শিক্ষক নামে নরপশু হাবিবুর রহমানের কঠিন শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

বড়চালা নছিরন নহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জানান, ঐ শিক্ষকের কারণে স্কুলে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমে গেছে অনেকটাই! সে দীর্ঘদিন যাবত লোক চক্ষুর অন্তরালে এসব নোংরামি কাজ করতো। এমন নরপশুর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি এলাকার সকল মানুষের।

ভালুকা মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ মোঃ মাঈন উদ্দিন আহমেদ জানান, ডাকাতিয়া বড়চালা নছিরন নহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে তিন ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়ার পর পরই মডেল থানা পু্লিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ধর্ষনের চেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন




All rights reserved © Prothom Kantho
Design BY Code For Host, Inc