সিনহার পরিণতি দেখে সঠিক রায় দেওয়ার সাহস করছেন না বিচারপতিরা : রিজভী

সিনহার পরিণতি দেখে সঠিক রায় দেওয়ার সাহস করছেন না বিচারপতিরা : রিজভী

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক,প্রথম কণ্ঠ : সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার পরিণতি দেখে বর্তমান বিচারপতিরা বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিনে সঠিক রায় দেওয়ার সাহস করতে পারছেন না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ শুক্রবার (২৮ ফেব্রুয়ারী) রাজধানীর নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, ‘দুই বছরের বেশি সময় ধরে কারারুদ্ধ খালেদা জিয়া তার বয়স, অসুস্থতাসহ সব বিবেচনায় জামিনের যোগ্য হলেও গণভবনের সরাসরি হস্তক্ষেপে জামিন পেলেন না। তাকে জামিন দেওয়া হয়নি। ’

‘আবার তাকে তার মানবাধিকার, মৌলিক সাংবিধানিক ও আইনগত অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হলো।’

তিনি বলেন, ‘আদালতের ন্যূনতম স্বাধীনতা থাকলে খালেদা জিয়া জামিন পেতেন। এই বাংলাদেশে ফাঁসির আসামিরাও জামিন পায়। শত শত কোটি টাকা লুট করা ব্যক্তিরাও জামিন পায়। অথচ একজনমাত্র ব্যক্তির ক্ষমতালিপ্সা আর প্রতিহিংসার কারণে খালেদা জিয়াকে নিজের পছন্দমতো সুচিকিৎসার সুযোগ দিতে জামিনও দেওয়া হচ্ছে না।’

বিএনপির এ নেতা বলেন, দেশের জনগণ সাক্ষী এই আদালতের সিটিং প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার সঙ্গে সরকারের ভিন্নমত হওয়ার কারণে চ্যাংদোলা করে বিদেশে তাড়িয়ে দিয়েছিল গানপয়েন্টে।

রিজভী বলেন, এখন যারা বিচারপতির আসনে, সাবেক প্রধান বিচারপতির পরিণতি দেখে তারা সঠিক রায় দেওয়ার সাহস করছেন না।

রিজভী বলেন, ‘তিনি (খালেদা জিয়া) যেভাবে সরকারের তত্ত্বাবধানে আদালতের অবিচারের শিকার হচ্ছেন, এমন পরিস্থিতিতে তার যদি আরও বড় কোনো ক্ষতি হয়ে যায়, তাহলে জনগণ কাউকেই ক্ষমা করবে না। গণতান্ত্রিক শাসন আর ন্যায়বিচারের সব পথ রুদ্ধ হয়ে গেলে জনগণ তখন আইন হাতে তুলে নিতে বাধ্য হয়। এটাই ইতিহাসের শিক্ষা।’

বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর বিষয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস দশার কথা বিবেচনা না করে সরকার বিদ্যুৎ ও ওয়াসার পানির দাম আবারো বাড়িয়েছে। ‘যখন ইচ্ছা বিদ্যুতের দাম বাড়াতে পারবে সরকার’ এই স্বেচ্ছাচারী আইন মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করিয়ে জনগণের ওপর ভয়াবহ জুলুম চালাচ্ছে।’

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন




All rights reserved © Prothom Kantho
Design BY Code For Host, Inc