টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে স্কুল শিক্ষার্থীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে স্কুল শিক্ষার্থীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে সংঘবন্ধ হয়ে এক স্কুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় (১৫ মার্চ) রাতে শিক্ষার্থীর বাবা বাদি হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে ভূঞাপুর থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। উপজেলার পূর্নবাসন এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এঘটনায় দুই ধর্ষণকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এরা হলো, উপজেলার পলশিয়া গ্রামের আঃ হামেদের ছেলে রানা বাবু (১৬) ও একই গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে জাকারিয়া (২০)। মামলা সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষিত ওই স্কুল শিক্ষার্থীকে উপজেলার পলশিয়া গ্রামের রানা বাবু বিদ্যালয়ে যাতায়াতের সময় উত্যক্ত করাসহ প্রেমের প্রস্তাব দিত। এতে প্রেমের প্রস্তাবে ব্যর্থ হয় রানা বাবু। পরে ক্ষিপ্ত হয়ে গত সোমবার রাতে প্রকৃতির ডাকে ওই শিক্ষার্থী ঘর থেকে বের হলে উপজেলার পলশিয়া গ্রামের রানা বাবুসহ সংঘবদ্ধ চারজন মিলে জোরপূর্বক তাকে পাশ^বর্তি সিরাজকান্দি গ্রামে নিয়ে যায়।

পরে সেখানে রানা বাবু ও তার বন্ধু জীবনের সহযোগিতায় উপজেলার ৪নং পুর্নবাসন গ্রামের বাদশার ছেলে সুজন ও পলশিয়া গ্রামের খালেকের ছেলে জাকারিয়া মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর বিষয়টি কাউকে জানালে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়। পরে ধর্ষণের বিষয়টি তার পরিবারের কাছে জানায় মেয়েটি।

ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ রাশিদুল ইসলাম জানান, ৯ মার্চ রাতে ওই চারজন সংঘবদ্ধ হয়ে ওই শিক্ষার্থীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। পরে পাশ^বর্তি গ্রাম সিরাজকান্দিতে নিয়ে গিয়ে জাকারিয়া ও সুজন তাকে ধর্ষণ করে। আটক রানা বাবু ও জাকারিয়া প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। ধর্ষিত মেয়েটিকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো জানান, আটক দুইজনকে সোমবার দুপুরে টাঙ্গাইল কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন




All rights reserved © Prothom Kantho
Design BY Code For Host, Inc