টাঙ্গাইলে গৃহবধূ হত্যায় স্বামী-শ্বশুরের মৃত্যুদণ্ড

টাঙ্গাইলে গৃহবধূ হত্যায় স্বামী-শ্বশুরের মৃত্যুদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রথমকণ্ঠ : টাঙ্গাইলের ভুঞাপুরে যৌতুকের টাকার জন্য তাসলিমা আক্তার নামে এক গৃহবধূকে পানিতে চুবিয়ে মেরে যমুনা নদীতে ভাসিয়ে দেয়ায় স্বামী ও শ্বশুরকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল।
সোমবার (৩১ আগস্ট) বিচারক খালেদা ইয়াসমিন এ আদেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি এক লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

মৃত্যু দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- ভুঞাপুর উপজেলার অর্জুনা গ্রামের জহিরুল ইসলাম (২৫) ও তার বাবা মজনু মিয়া (৫৫)।

টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি নাসিমুল আক্তার নাসিম জানান, জহিরুল ইসলামের সঙ্গে একই উপজেলার কুঠিবয়রা গ্রামের সলিম উদ্দিনের মেয়ে তাসলিমা আক্তারের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের টাকা দাবি, করে তাসলিমার ওপর বিভিন্ন সময়ে নির্যাতন করতেন তার স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন।
২০১৬ সালের ২৩ নভেম্বর তারিখ থেকে ২৮ নভেম্বরের মধ্যে কোনো এক সময় যৌতুকের দেড় লাখ টাকা দাবি করে তাসলিমাকে পানিতে চুবিয়ে হত্যা করে মরদেহ যমুনা নদীতে ভাসিয়ে দেয় তারা। তিন দিন পর ভুঞাপুরের গোবিন্দাসী ঘাট থেকে তাসলিমার ভাসমান মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তার বাবা বাদী হয়ে একই বছরের ১ ডিসেম্বর থানায় মামলা দায়ের করলে স্বামী জহিরুল ইসলাম ও মজনু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে।
তারা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। পরবর্তীতে তারা জামিনে মুক্ত হন।
তাদের আদালতে হাজির থাকার কথা থাকলেও তারা উপস্থিত হননি। তাদের অনুপস্থিতিতেই মৃত্যুদণ্ড রায় প্রদান করা হয়েছে।
প্রথমকণ্ঠ / এস এম

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন




All rights reserved © Prothom Kantho
Design BY Code For Host, Inc